প্রতিদিন কালোজিরা খাওয়ার উপকারিতা ও অপকারিতা সম্পর্কে বিস্তারিত জানুন

 প্রিয় পাঠক, আপনি কি কালোজিরা এবং মধু সকালে খেলে কি উপকার হয় এটা জানতে চাচ্ছেন তাহলে এই আর্টিকেলটি শুধু আপনার জন্যই। তাই আর দেরি না করেই এখনই এই আর্টিকেলটি পড়ে ফেলুন।




ভূমিকাঃ

বর্তমান সময়ে কালোজিরা খুব পরিচিত একটি নাম। প্রতিগ্রাম কালোজিরায় যে সব পুষ্টি উপাদান রয়েছে সেগুলো হলোঃ ক্যালসিয়াম, আয়রন, ফসফরাস, জিংক , প্রোটিন, ভিটামিন-বি ইত্যাদি।

সর্দি কাশিতে আরাম পেতে কালোজিরা ও মধু খাওয়ার নিয়ম

সর্দি-কাশিতে কালোজিরা ও মধু গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে থাকে। খাওয়ার নিয়ম
  1. এক চা-চামচ কালজিরা সাথে তিন চা-চামচ মধু ও দুই চা-চামচ তুলসী পাতা একসঙ্গে প্রতিদিন সকালে খেলে জ্বর, ব্যথা, সর্দি-কাশি কমে যায়।
  2. বুকে কফ বসে গেলে কালোজিরা বেটে মোটা করে বুকে লাগিয়ে দিলে সুস্থতা পাওয়া যায়।

রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায়ঃ

রোগ প্রতিরোধের ক্ষমতা বাড়ায় এবং রোগ প্রতিরোধে আরও প্রথা চলে আসছেশক্তিশালী করে কালোজিরা, যেমনঃ নিয়মিত পেট খারাপের সমস্যা থাকলে কালোজিরা সামান্য ভেজে গুঁড়ো করে ৫০০ মিলিগ্রাম হারে ৭-৮ চা চামচ দুধে মিশিয়ে সকালে ও বিকালে খেলে উল্লেখযোগ্য ফল পাওয়া যায়। তাই সকালে কালোজিরার সাথে মধু মিশিয়ে খেতে পারেন।

ক্ষতিকর ব্যাকটেরিয়া নিধন থেকে শুরু করে শরীরের কোষ কলার বৃদ্ধিতে সহায়তা করে।  আবহাওয়া কমলে-বাড়লে শরীরের যে সকল সমস্যা হয় সেসব যন্ত্রণাকার সমস্যার সমাধান দেয় কালোজিরা। দেহের বিভিন্ন ব্যথা যেমনঃ হাঁটুর/বাতের ব্যথা, মাজা ব্যথা, স্মরণশক্তি বৃদ্ধিতে সহায়তা করে। দেহের সাধারণ উন্নতি; চেহারার কমনীয়তা ও সৌন্দর্য বৃদ্ধিতে সহায়তা করে কালোজিরা।

এছাড়া প্রতিদিন সকালে কালোজিরা খেলে সহজে ঘা, ফোড়া সংক্রমণ রোগ বা ছোঁয়াচে রোগ থেকে বিরত রাখে। ইউনির পাথর দূর করতে বা ব্লাডার সুরক্ষায় তারণ্য ধরে রাখতে আদিমযুগ থেকেই কালোজিরা খাওয়ার প্রথা চলেই আসছে। এছাড়া কাজ করার কয়েকজন শক্তি বাড়াতে কালোজিরা অত্যন্ত ভূমিকা রাখে।

কালোজিরার অপকারিতাঃ

কালোজিরা নিয়মিত বা পরিমিত খেতে হবে। পরিমাণে বেশি খেলে উপকারে চেয়ে ক্ষতি বেশি হবে। হজম করতে পারেন না তিনারা না খাওয়াটাই ভালো। গর্ভাবস্থায় অতিরিক্ত কালোজিরা খেলে গর্ভপাতের সম্ভাবনা থাকে। কালোজিরা গ্রহণ করার সময় সবটাই করতে হবে পরিমিত পর্যায়ে। দুই বা তার চেয়ে কম বয়সের বাচ্চাদের কালোজিরা তেল সেবন করানো উচিত নয়। পুরনো কালোজিরার তেল স্বাস্থ্যের জন্য অত্যন্ত ক্ষতিকারক
Next Post Previous Post
No Comment
Add Comment
comment url